ধুলোবালির পরিবেশে ত্বকের যত্ন

রূপচর্চা/বিউটি-টিপস March 28, 2017 783
ধুলোবালির পরিবেশে ত্বকের যত্ন

বছরের এ সময়টাতে ধুলোবালি সবচেয়ে বেশি হয়ে থাকে। আর এ জন্য হয়ে থাকে নানা সমস্যা। ত্বকের সমস্যাই এ সময় প্রধান বিড়ম্বনার কারণ। ধুলোর স্পর্শে প্রায়ই ত্বকে ব্রণ, এলার্জি সৃষ্টি হয়ে থাকে। ধুলোবালি লোমকূপে খুব দ্রুত জমে এসব সমস্যা সৃষ্টি করে।


ধুলোবালির সঙ্গে এ সময় গরম রোদও যোগ হয়ে থাকে বলে সূর্যের অতি বেগুনি রশ্মির প্রভাবে ত্বকের টোনও ভালো থাকে না। তাই ত্বকে পোড়াভাবের সৃষ্টি হয়। এসব ক্ষেত্রে আমরা বাইরে যাওয়ার আগে মাক্স ব্যবহার করতে পারি।


প্রয়োজনে বারবার মুখে পানির ঝাপটা দিতে পারি। তাহলে ধুলোবালি ত্বকে জমতে পারে না। ওপরের সমস্যাগুলোর জন্য আমাদের এ সময় বাড়তি যত্ন নিতেই হবে। ঘরে বসে যত্ন নেয়ার পরামর্শ দিয়েছেন সাজাইয়ের কর্ণধার আরিফা হোসেন


১. আমরা এ ক্ষেত্রে আদার রস, লেবু ও মধু দিয়ে ফেসপ্যাক তৈরি করে ত্বকে লাগিয়ে ১৫-২০ মিনিট রেখে নরমাল ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে নিতে পারি। এভাবে সপ্তাহে ৩ দিন করতে পারি।


২. চালের গুঁড়া, ময়দা, দুধ, লেবুর রস, শসার রস ও সঙ্গে তিলের তেল দিয়ে একটি প্যাক তৈরি করে আমরা ব্যবহার করতে পারি।


৩. আমরা ত্বকের টোনিং করতে দুধ আর মধু মিশিয়ে ক্রিমের মতো করে প্যাক তৈরি করে ব্যবহার করতে পারি।


৪. কোনো কোনো ত্বকের জন্য ত্বকের প্যান্টেনিংটা কিছুতেই দূর করা সম্ভব হয় না। সে ক্ষেত্রে ত্বকের প্যান্টেনিং ভাবটা দূর করতে ত্বকে কাঁচা হলুদ ব্যবহার করা যেতে পারে।


এ ক্ষেত্রে আমরা সানবার্ন যাতে না হয় সে জন্য সানবার্ন ক্রিম ভালো কোম্পানির ব্যবহার করব। সানগ্লাস পরব, সুতি কাপড় পরার চেষ্টা করব। প্রয়োজনমতো ঘনঘন মুখে পানির ঝাপটা দেব। খুব রোদ বা ধুলোবালি পরিহার করে চলার চেষ্টা করতে হবে। প্রয়োজন হলে ভালো পার্লারে গিয়ে এ সময় ত্বকের যত্ন নিলে ভালো হয়।