রূপচর্চায় বরফের যত ব্যবহার

রূপচর্চা/বিউটি-টিপস March 6, 2017 1,174
রূপচর্চায় বরফের যত ব্যবহার

তপ্ত দুপুরে এক গ্লাস বরফ শীতল পানি যেমন স্বস্তি এনে দিতে পারে তেমনি মেইকআপ বা ত্বকের যত্নেও সহায়ক বরফ।


রূপচর্চাবিষয়ক একটি ওয়েবসাইটের প্রতিবেদন থেকে জানা যায়- ত্বকের বড় হয়ে যাওয়া লোমকূপ সংকুচিত করতে, মেইকআপ ঠিক রাখতে এবং অতিরিক্ত ঘামের সমস্যার সমাধান হতে পারে বরফ।


ব্রণ দূর করতে বরফ: ব্রণের ফোলাভাব কমাতে সাহায্য করে বরফ। একটি পরিষ্কার কাপড়ে কয়েক টুকরা বরফ নিয়ে ব্রণের উপর হালকা করে চেপে ধরতে হবে। এতে ব্রণ সংকুচিত হবে এবং ব্যথা কমবে।


ত্বক উজ্জ্বল করতে: বরফ ঘষলে ত্বকে দীপ্তি ফিরে আসে। পরিষ্কারের পর এক টুকরা বরফ ঘষে নিলে ত্বকে স্নিগ্ধতা ফিরে আসবে। বরফ ঘষার ফলে রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি পায় তাই ত্বক সুস্থ থাকে। পাশাপাশি বলিরেখা দূর করে ত্বকের তারুণ্য ধরে রাখতেও বরফ বেশ উপকারী।


ভ্রু-প্লাকের ব্যথা কমাতে: ভ্রু প্লাক করার সময় বেশ ব্যথা অনুভূত হতে পারে। তাই শুরুতে এক টুকরা বরফ ঘষে নিন। এতে ভ্রু’র অংশ খানিকটা অবশ হয়ে আসবে। ফলে ব্যথা কম হবে।


চোখের ফোলাভাব দূর করতে: অপর্যাপ্ত ঘুমের কারণে চোখের নিচে ফুলে যেতে পারে। চোখের ফোলাভাব কমাতে বরফ চেপে ধরতে পারেন। যা চোখে আরাম দেওয়ার পাশাপাশি ত্বক করবে টানটান।


রোদে পোড়াভাব কমাতে: সানস্ক্রিন ব্যবহার করার পরও ত্বক পুড়ে যেতে পারে। রোদ থেকে ঘরে ফিরে ত্বকে খানিকটা বরফ ঘষে নিলে জ্বালাভাব কমে আসবে এবং পোড়াভাবও দূর হবে।


মেইকআপ দীর্ঘস্থায়ী করতে: মেইকআপের শুরুতে মুখে বরফ ঘষে নিলে তা লোমকূপ সংকুচিত করবে এবং ত্বক শীতল হবে। ফলে ত্বকে মেইকআপ সহজেই বসে ও দীর্ঘক্ষণ স্থায়ী হয়।


নেইলপলিশ শুকাতে: নখে নেইলপলিশ লাগানোর পর তা চটজলদি শুকাতে বরফ ঠাণ্ডা পানিতে নখ ভিজিয়ে রাখুন।


লালচেভাব কমাতে: রোদ, অ্যালার্জি, ওয়্যাক্সিং বা প্লাকিং ইত্যাদি বিভিন্ন কারণে ত্বকে লালচেভাব হতে পারে। এমন সমস্যায় বরফ কাপড়ে মুড়ে ত্বকে ঘষে নিন। এতে লালচেভাব এবং র‌্যাশ কমে আসবে।


সতর্কতা: বরফ ব্যবহার ত্বকের জন্য উপকারী। তবে এক্ষেত্রে সঠিকভাবে ব্যবহার করাও গুরুত্বপূর্ণ। অনেকেই ভাবেন ত্বকে সরাসরি বরফ ঘষে নিলে ভালো কাজ করবে। তবে চামড়ার নিচে থাকা সূক্ষ্ম শিরাগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। তাই বরফ কাপড়ে পেঁচিয়ে ত্বকে ঘষে নেওয়া নিরাপদ এবং উপকারী।