ম্যাচ হারের কারন হিসেবে যা বললেন অধিনায়ক শান্ত

ক্রিকেট দুনিয়া March 4, 2024 4,514
ম্যাচ হারের কারন হিসেবে যা বললেন অধিনায়ক শান্ত

লঙ্কানদের বিপক্ষে প্রথম টি-টোয়েন্টিতে লক্ষ্যটা ছিল ২০৭ রানের। সেটা তাড়ায় নেমে ম্যাচ শেষে দর্শকরা দেখলেন ২৩ ছক্কার এক ম্যাচ। দুই ইনিংস মিলিয়ে মোট রান ৪০৯। বাংলাদেশের ক্রিকেটে এমন ম্যাচ সচরাচর যে দেখা যায় না। ঐ বিশাল রানের পথ পাড়ি দিতে গিয়ে ১০ ওভার শেষে ৭৮ রান তুলতে বাংলাদেশ হারায় চতুর্থ উইকেট। সিলেটে বাংলাদেশের জয়কে তখন মনে হচ্ছিল অনেক দূরের পথ।


তবে মাহমুদউল্লাহ ও জাকের আলী সেখান থেকেই দলকে নিয়ে গেলেন জয়ের অনেক কাছে। দীর্ঘ ১৮ মাস পর প্রথম টি-টোয়েন্টি খেলতে নামা মাহমুদউল্লাহ আউট হন ১৪তম ওভারে ৩১ বলে ৫৪ রানের ইনিংসের পর। বাংলাদেশের সমীকরণ কঠিন হয়ে পড়ে আরও।


জাকের সে সমীকরণ মিলিয়েই ফেলেন প্রায়। দুর্দান্ত হিটিংয়ে বাংলাদেশকে যেমন আশা দেন, চাপে ফেলেন শ্রীলঙ্কাকে। মেহেদী হাসানও এগিয়ে আসেন। শেষ ওভারে দরকার ছিল ১২ রান। তৃতীয় বলে গিয়ে স্ট্রাইক পাওয়া জাকের আর শেষ করে আসতে পারেননি।


তীরে এসে তরী ডুবানোর অভ্যাস বাংলাদেশের নতুন নয়। আগেও হয়েছে, এবারও তাই হলো। ৩ রানের হৃদয় ভাঙ্গা হারের এক গল্প রচিত হলো লাক্কাতুরা চা বাগানের মাঝে থাকা সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে। তবে অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্তর কাছে এই হারের চেয়েও বড় প্রাপ্তি সতীর্থদের দৃঢ় মানসিকতা দেখানো। যা নাকি তার ভালো লেগেছে।


ম্যাচ শেষে তিনি বলেছেন, ‘ম্যাচ হেরেছি বলে খারাপ তো লাগছেই। তবে ভালো লাগার বিষয় এটাই যে ছেলেরা তাদের দৃঢ় মানসিকতা দেখিয়েছে। আমরা শুরুটা ভালো করেছিলাম। তবে ডেথ ওভারে আমরা পরিকল্পনা অনুযায়ী বল করতে পারিনি। এটা নিয়ে আমাদের কাজ করতে হবে। আশা করি পরের ম্যাচে ভুল শুধরে আমরা ঘুরে দাঁড়াব।’


দুজনের অনবদ্য ইনিংস দলকে নিয়ে গিয়েছিল জয়ের প্রান্তে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত হয়নি। তবুও বাংলাদেশি ব্যাটারের মধ্যে এক ইনিংসে সর্বোচ্চ (৬টি ছক্কা) ছক্কার রেকর্ড এখন জাকেরের। ৬৮ রানের ইনিংসের পথে আরও ছিল ৪টি চার।


যা ভালো লেগেছে শান্তর কাছে। অধিনায়কের আশা পরের ম্যাচেও একই অবদান রাখবেন তারা। পুরস্কার বিতরণীতে শান্ত বলেন, ‘রিয়াদ ভাই এবং জাকের আলি দারুণ খেলেছেন। আশার করি পরের ম্যাচেও তারা দলের জন্য অবদান রাখবেন।’


সূত্রঃ দেশ রূপান্তর