করলার ১৪টি বিশেষ উপকারিতা

সাস্থ্যকথা/হেলথ-টিপস October 26, 2017 777
করলার ১৪টি বিশেষ উপকারিতা

করলায় প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এ, বি ও সি রয়েছে। একই সঙ্গে এতে বিটা-ক্যারোটিন, লুটেইন, আয়রন, জিঙ্ক, পটাশিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ ও ম্যাগনেসিয়াম রয়েছে। এ জন্য এটি শরীরের জন্য অনেক উপকারী।


করলা আকারে বড় ও ছোট হলেও গুণের দিক থেকে একই রকম। ডায়াবেটিসসহ বিভিন্ন রোগ নিরাময়ে করলার ভেষজগুণের পর্যাপ্ততাও রয়েছে।


তাহলে জেনে নিন করলার ১৪টি বিশেষ উপকার:-


১. করলা রক্তচাপ কমাতে পারে।


২. ক্রিমিনাশক হিসাবে করলা কাজ করে।


৩. করলা রক্তের চর্বি কমায়।


৪. এটি ভাইরাস নাশক হিসাবে কাজ করে যেমন হিপাটাইটিস এ, হারপিস ভাইরাস, ফ্লু, ইত্যাদির বিরুদ্ধেও বেশ কার্যকর ভুমিকা রাখে।


৫. গবেষকদের মতে করলা ক্যান্সাররোধী হিসাবে কাজ করে, যেমন করলা লিভার ক্যান্সার, লিউকেমিয়া, মেলানোমা ইত্যাদি প্রতিরোধ করে থাকে।


৬. কোষ্ঠ কাঠিন্য দূর করার ক্ষেত্রে করলার রয়েছে বিশেষ অবধান।


৭. করলা হিমোগ্লোবিন তৈরি করতে সাহায্য করে কারন করলায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণে আয়রন।


৮. করলা পাতার রস শরীর থেকে অতিরিক্ত টক্সিন বের করতে সহায়তা করে।


৯. করলা ত্বক ও চুল ভালো রাখার জন্য একান্ত প্রয়োজনীয় কারন করলায় আছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি।


১০. করলা ম্যালেরিয়া জ্বরে ও মাথা ব্যথায়ও অনেক উপকারী।


১১. করলাতে আছে বিটা ক্যারোটিন যা দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখতে ও চোখের সমস্যা সমাধানে উপকারী।


১২. নানা রকমের ব্লাড ডিজঅর্ডার যেমন স্ক্যাবিজ, রিং ওয়র্ম-এর সমস্যায় করলা অনেক উপকারী। করলা ব্লাড পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে।


১৩. করলা বার্ধক্য ঠেকিয়ে রাখতে সাহায্য করে থাকে কারন এতে আছে ভিটামিন এ এবং ভিটামিন সি এন্টি অক্সিডেন্ট।


১৪. করলা বাতরক্ত দূর করতে সহায়ক। চার চা চামচ করলা বা উচ্ছে পাতার রস একটু গরম করে সেই সাথে এক চা চামচ বিশুদ্ধ গাওয়া ঘি মিশিয়ে ভাতের সাথে খেতে হবে।