অপরাধী নেই, জেলে বাসা বেঁধেছে ঘুঘু

সাধারন অন্যরকম খবর May 24, 2017 1,193
অপরাধী নেই, জেলে বাসা বেঁধেছে ঘুঘু

নেদারল্যান্ডসে এখন সত্যজিত্‍ রায়ের গান বাজছে, ‘আহা কী আনন্দ আকাশে-বাতাসে’। হয়তো বাংলায় হচ্ছে না। সে দেশের ভাষাতেই হাল্লার রাজার মন্ত্রীর গুপ্তচর বলছে, ‘সে দেশে সুখ আছে, শান্তি আছে, গাছে ফুল আছে, ফল আছে’। সঙ্গে এটাও বলবে যে, সে দেশে কোনও অপরাধ নেই। তাই জেলগুলোতে চড়ছে ঘুঘু।


দেশটিতে ইতিমধ্যে ১৮টি জেল বন্ধ করে দিচ্ছে সরকার। কারণ? অপরাধী নেই, তো জেল ভরবে কোথা থেকে? এর পেছনে অবশ্য দীর্ঘমেয়াদি পরীক্ষা-নিরীক্ষা রয়েছে।


জেলে পচিয়ে শাস্তি দেওয়ার দিকে না ঝুঁকে বরং দোষীকে সামাজিক কাজেই ব্যবহার করেই তাঁকে মূল স্রোতে ফেরানো হয়। নেদারল্যান্ডসে ইলেক্ট্রনিক অ্যাঙ্কেল মনিটরিং সিস্টেম-এর মাধ্যমে একটি প্রযুক্তির সাহায্যে অপরাধীদের ওপর এক দিকে নজর রাখা হয়, অন্য দিকে তাঁদের সামাজিক এবং তাঁদের দৈনন্দিন কাজে উত্‍সাহ দেওয়া হয়।


জাস্টিস মিনিস্টার আর্ড ফান ডার স্তেউর পার্লামেন্টে ঘোষণা করেছেন, নেদারল্যান্ডসের মতো ছোট দেশে আলাদা আলাদা প্রান্তে জেল সচল রাখার অর্থ পুরো জেল ব্যবস্থাতকে সচল রাখা। তাই জেলগুলি বন্ধ করার কথা ভাবা হয়েছে।


অবশ্যই এর আগে প্রতিবেশী দেশ নরওয়ে থেকে ২৪০ জেলবন্দি অপরাধী এনে একটি জেল সচল রাখা হয়েছিল।


কিন্তু আর এমন করতে নারাজ সরকার। এর ফলে প্রায় দেড় হাজার কর্মী কাজ হারাচ্ছেন। প্রায় ৭০০ জন কর্মীকে অন্যান্য সরকারি কাজে পুনর্বহাল করা হবে বলে জানিয়েছে সরকার।